Health experience | Write here | Write and share your health experience to help community.

ওয়েজেনারের রোগে কেন এত ভয়াবহ, এর লক্ষণ ও প্রতিরোধ

Fahima Jara Wednesday, September 15, 2021

ওয়েজেনারের গ্রানুলোমাটোসিস একটি মারাত্মক রোগ। এটি একটি বিরল ধরনের প্রদাহ যা শ্বাসতন্ত্র এবং কিডনির ধমনী, কৈশিক এবং শিরাগুলিকে আক্রমণ করে। এটি ফুসফুস, নাক, সাইনাস এবং শ্বাসনালীকে প্রভাবিত করতে পারে। 


ওয়েজেনারের রোগের কোন প্রতিকার নেই। কিন্তু সময়মত রোগ নির্ণয় করলে প্রদাহ প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করতে পারে। এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তির শরীরে রক্তবাহী জাহাজে মতো প্রদাহ পায়। যা শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গের রক্ত ​​সরবরাহ বন্ধ করে দেয়। যার ফলে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ ব্যর্থতার কারণ হয়।


যে বিষয় রোগটিকে সবচেয়ে ভয়াবহ করে তোলে তার কারণ সম্পর্কে এখনো তেমন কিছু জানা যায়নি। কয়েকটি গবেষণায় রক্তনালীর কোষকে লক্ষ্য করে ইমিউন সিস্টেম কোষের সাথে এর সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করা হয়েছে। যাইহোক, এমন কোন তত্ত্ব নেই যা এখনো পুরোপুরি গৃহীত হয়েছে। আরেকটি কারণ যা এটি পরিচালনা করা কঠিন তা হলো এর লক্ষণগুলি খুব অ-নির্দিষ্ট। কিছু ডাক্তার পরামর্শ দেন যে অতিরিক্ত চাপ সংক্রমণের মূল কারণ হতে পারে। কিন্তু এর কোন নির্দিষ্ট সম্পর্ক নেই। রোগটি যে রক্তনালীগুলিকে প্রভাবিত করেছে সে অনুযায়ী লক্ষণ দেখায়। 


যাইহোক, এই রোগের কিছু সাধারণ লক্ষণ হতে পারে ক্লান্তি, ক্রমাগত কাশি, শ্বাসকষ্ট, জয়েন্টে বেদনাদায়ক ব্যাথা এবং দীর্ঘস্থায়ী নাকে ব্যাথা। আরেকটি চিহ্ন হলো নাকের শ্লেষ্মা, থুতনি বা প্রস্রাবের অস্বস্তিতে রক্তের চিহ্ন। ওয়েজেনারের রোগ যেকোনো বয়সের মানুষের মধ্যেই দেখা দিতে পারে। তবে ৩০-৫০ বছর বয়সের ব্যক্তিদের মধ্যে এই রোগ বেশি দেখা দেয়। ওয়েজেনারের রোগটি সাধারণত রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে শনাক্ত করণ করা হয়। 




ওয়েজেনারের রোগের কারণ

ওয়েজেনার সম্পর্কে সবচেয়ে ভয়ঙ্কর বিবরণ গুলো এখনো সঠিক ভাবে জানা যায়নি। কিছু গবেষণায় ইঙ্গিত করা হয়েছে যে এর কারণ শরীরের রক্তবাহী কোষে আক্রমণকারী ইমিউন সিস্টেমের কোষগুলির সাথে সম্পর্কিত হতে পারে। এটি রক্তনালীগুলিকে স্ফীত এবং সংকুচিত করতে পারে এবং প্রদাহজনক টিস্যুর ভর হতে পারে। যা গ্রানুলোমাস নামে পরিচিত।

গ্রানুলোমাস অনেক ক্ষতিকারক, কারণ এটি শরীরে থাকা স্বাভাবিক টিস্যু ধ্বংস করতে পারে।



ওয়েজেনারের রোগ সম্পর্কে সঠিক ধারণা কারো জানা নেই। তবে অনুমান করা হয় যে,ওয়েজেনারের যে অ্যান্টিজেন থাকে সেটি শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতাকে রক্তনালীর প্রদাহ সৃষ্টি করতে সহায়তা করে । ওয়েজেনারের রোগের সংক্রমণের ফলে মানসিক চাপ হতে পারে বলে জানিয়েছেন অনেক চিকিৎসকরা।  




ওয়েজেনারের বিস্তৃত লক্ষণগুলি ক্ষতিগ্রস্ত রক্তনালীর উপর নির্ভর করবে। এই রোগের লক্ষন গুলো হলো-   

১/ ক্লান্তি


২/ অব্যক্ত ওজন হ্রাস


৩/ বারবার জ্বর আসা 


৪/ শ্বাসকষ্ট হওয়া 


৫/ অঙ্গ, আঙ্গুল বা পায়ের আঙ্গুলের মধ্যে অসাড়তা। 


৬/ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষত হওয়া। 


৭/ ক্রমাগত কাশি


৮/ পেশীর জয়েন্টগুলোতে ব্যাথা 


৯/ দীর্ঘস্থায়ী প্রবাহিত নাক


১০/ সাইনোসাইটিস (সাইনাসের প্রদাহ, বাধা এবং ব্যাথা)


১১/ অনুনাসিক শ্লেষ্মা, থুতনি বা প্রস্রাবের বুকের অস্বস্তিতে রক্তের চিহ্ন


১২/ কানের মধ্যে বিভিন্ন রোগের সংক্রমণ। 



১৩/ কোন অঙ্গ ক্ষতিগ্রস্ত হয় তার উপর লক্ষণ নির্ভর করে রোগীর কিডনি ব্যর্থতা বা এমনকি ফুসফুস থেকে রক্তপাত হতে পারে।




ওয়েজেনারের রোগ প্রতিরোধ

চিকিৎসকরা বলেছেন যে, ওয়েজেনারের রোগের 

সঠিক কোন প্রতিরোধ নেই। দিল্লির ইন্দ্রপ্রস্থ অ্যাপোলো হাসপাতালের পালমোনোলজিস্ট ডা. রাজেশ চাওলা বলেন, "এটি একটি খুব অস্বাভাবিক রোগ। আমাদের দেশের খুব কম মানুষই এই রোগে ভুগে থাকেন। গড়ে ২-৩ জনের মধ্যে ওয়েজেনারের রোগটি দেখা যায়। এছাড়াও, এই ধরনের ঘটনা সবসময় একজন বিশেষজ্ঞের কাছে আসে না। কারণ এতে বিভিন্ন অঙ্গ জড়িত থাকে । 




ওয়েজেনারের রোগের চিকিৎসা

যে ব্যক্তি ওয়েজেনার ডিজিজের চিকিৎসা নিতে চাইবে সবার আগে তার রোগটি নির্নয় করতে হবে। রোগের সাথে জড়িত বিভিন্ন অঙ্গকে কভার করতে প্রেসক্রিপশন ঔষধের সাথে একত্রে কাজ করার সর্বোত্তম চিকিৎসা পদ্ধতি গ্রহণ করতে হবে। এগুলোর মধ্যে কিছু ঔষধ রয়েছে যেমন -


১/ কর্টিকোস্টেরয়েড - এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দমন এবং রক্তনালীর প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে। 


২/ ইমিউনোসপ্রেসেন্ট - এই ঔষধ গুলি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে দমন করতেও সাহায্য করে। 


৩/ পুনরুত্থান রোধ করার জন্য ঔষধ - শরীরের অবস্থা নিয়ন্ত্রণের পর, রিতুক্সিমাব এবং মেথোট্রেক্সেটের মতো ঔষধ গুলি রোগের পুনরুত্থান রোধে সাহায্য করতে ব্যবহৃত হয়। 


৪/ বমি বমি ভাব এবং চুল পড়ার মতো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া মোকাবেলায় ঔষধ অনেক সহায়তা করে। 






Share

Cloud categories

calcium and vitamin d supplement genital herpes pertussis vertigo irritable bowel syndrome bone hives anxiety disorders asthma calcium deficiency cystitis hepatic encephalopathy hydration russell's viper and saw-scaled fractures stress gonococcal urethritis urinary incontinence fatigue osteoarthritis diabetes prostate cancer disinfectant acute pain vitamin a liver cirrhosis vitamin a deficiency eczema infected wounds malnutrition cough pancreatic herpes zoster cancer hemorrhoids

দিন দিন ডিপ্রেশন বেড়ে যাচ্ছে কি

বর্তমান সময়ে আমাদের জীবনের অন্যতম বড় সমস্যা ডিপ্রেশন। আমাদের পরিবার, বন্ধু-বান্ধব, এমনকী ন ...

1 Like

কেন ডাক্তাররা সিজার করেন? জেনেনিন সিজার করার কারণ সমূহ

স্বাভাবিক ডেলিভারি ঝুঁকিপূর্ণ হলে মা ও শিশুর সুস্থতার স্বার্থে সিজার পদ্ধতিতে ডেলিভারির প্ ...

2 Like

আপনি কি অ্যালকোহল পান করেন ? কিছু বিষয় যেনে পান করুন

অ্যালকোহল এমন একটা পানীয় যা দেখলেই পান করতে মন চায়। আগের দিনে অ্যালকোহল জলের বিকল্প হিসেব ...

2 Like

হটাত জ্বরে আক্রান্ত হলে করনীয়

জ্বর কোনো রোগ নয়, রোগের উপসর্গ। অনেক জ্বরেই কোনো অ্যান্টিবায়োটিকের প্রয়োজন হয় না। জ্বর হলে ...

0 Like

শীতকালে সর্দি, কাশি, নাক বন্ধ স্বাভাবিক ব্যাপার তবে যারা দীর্ঘদিন নাকের ড্রপ ব্যবহার করছেন তাদের কিছুটা সতর্ক হওয়া দরকার

কিছু কিছু নাকের ড্রপ আছে যা দীর্ঘদিন ব্যবহারে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। তবে স্যাল ...

1 Like

হলুদ দিয়ে চা খান, শরীরের মেদ নিমেষে দূর হয়ে যাবে

হলুদের গুণাগুণ আমরা সকলেই জানি। শরীরের মেদ কমানোর যাবতীয় গুণাগুণ হলুদে রয়েছে। তাই হলুদ দিয় ...

1 Like

পেটের চর্বি কমানর সহজ কিছু ব্যায়াম। পর্ব ১

পেটের চর্বি কি আপনার ঘুম হারার করে দিয়েছে? আজকাল ছোট বর অনেকেই এই সমস্যায় জর্জরিত। কিন্তু ...

1 Like

পেটের চর্বি কমানর সহজ কিছু ব্যায়াম। পর্ব 2

গত পর্বে লিখা হয়েছিল কিভাবে ক্রাঞ্চেস (Crunches) করবেন। না পরে থাকলে নিচের লিঙ্ক থেকে দেখে ...

1 Like